Muslim
Population

 
Whole world countrywise Article - Must Visit
 

Other Religion

religious
population.com
 

 

Imam's buried body found fresh after 32yrs!

Imam's buried body found fresh after 32yrs!

       

 

Reported by: UNB Connect Reported on: June 19, 2012 12:45 PM Reported in: National By Daily Mail Reporter

Kurigram, Bangladesh - June 19 2012 (UNB) – The body of an elderly Imam was found fresh in a river erosion-ravaged grave on Monday, three decades after his burial at Charsitaijhar village at Mogalbasa union in Sadar upazila.

The deceased, Ghughu Munshi alias Basar Uddin Munshi, was the imam (religious leader) of a local mosque. He died of old age complications 32 years ago and was buried at the family graveyard on the compound of his Charsitaijhar village home in the vicinity of the Dharala River in 1980.

Late Ghughu Munsh's son Hajrat Ali, 60, told UNB that their house along with his father's grave went into the gorge of the river during an erosion in 2004 and the body of his father was found fresh in the destroyed graveyard.

Hazrat with the help of his neighbours recovered the body and reburied it at neighbouring Krishnapur Eidgah Maidan (field).

Eight years after the incident, Dharala has turned turbulent again devouring several hundred acres of land on its both banks. On Monday, the river engulfed Krishnapur Eidgah, including the spot where Ghughu was reburied in 2004 with part of his grave going into the river this time around.

Though incredible it may sound but it is true that the body of Ghughu Munshi has been found fresh in his grave by his son, relatives and the villagers three decades after his death.

As the news spread around, hundreds of people from the village, neighbouring unions and far-flung areas of the upazila have been coming to Charsitaijhar since Monday late afternoon to see the body of the former Imam.

His body was buried again on the premises of Fazlul Karim Rahmatia Madrasah after a namaz-e-janaza in the evening.

Source: http://unbconnect.com/component/news/task-show/id-79923

BENGALI VERSION

লাশ দাফনের দীর্ঘ ৩২ বছর পরও অক্ষত অবস্থায় কবর থেকে বছির উদ্দিন (ঘুঘু মুন্সী) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী। গতকাল সোমবার বিকেলে ধরলা নদীর প্রবল ভাঙনে কবর ভেঙে গেলে ভাঙা কবর থেকে লাশ উদ্ধার করে পুনরায় ওই লাশ কবর দেওয়া হয়। কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার মোগলবাসা ইউনিয়নের চর কৃষ্ণপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী জানায়, এ নিয়ে ঘুঘু মুন্সীর লাশ তিন বার দাফন করা হলো। আট বছর আগে ধরলার ভাঙন...ের মুখে তাঁর লাশ কবর থেকে কৃষ্ণপুর ঈদগাহ কবর স্থানে দাফন করা হয়েছিল। এরপর আবারও কবরস্থানটি নদী ভাঙনের কবলে পড়লে দ্বিতীয়বারের মতো তাঁর লাশ কবর থেকে বের করে ধরলা নদীর পূর্ব প্রান্তের চর মাধবরাম গ্রামের ইসলামিয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে পুনরায় দাফন করে গ্রামবাসী।

এদিকে ৩২ বছর পর কবর থেকে অক্ষত অবস্থায় লাশ পাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে কুড়িগ্রামসহ আশপাশের এলাকার হাজার হাজার মানুষ লাশটিকে এক নজর দেখার জন্য ছুটে আসে। তবে ইসলামী শরিয়ায় বাধ্যবাধকতা থাকায় লাশের মুখ কাউকে দেখতে দেওয়া হয়নি।

এ বিষয়ে ফজলুল করিম (রহ.) জামিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম মুফতি আবুল হাসান আনছারী বলেন, লাশের শরীর ও মুখ দেখে মনে হয় মানুষটি এই বুঝি ঘুমিয়ে গেল। ঘুঘু মুন্সীর ছেলে হযরত আলী (৬৫) ও আশরাফ আলী (৫০) জানান, ৩২ বছর আগে তাঁর বাবা স্বাভাবিকভাবে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি দীর্ঘ দিন গ্রামের মসজিদে ইমামতি করেছেন। ইউপি সদস্য তৈয়ব আলী জানান, ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় আলেম-ওলামাদের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করে পুনরায় দাফন করা হয়েছে।
Source: কালের কন্ঠ